গ্রীক কুজিনে ব্যবহৃত দশটি মশলা

0
464

বিশ্বের প্রতিটি দেশের রন্ধনপ্রণালীই তাদের নিজস্ব কুজিন তথা রন্ধনশৈলীর ধারক ও বাহক। প্রতিটি দেশেই বিচিত্র সব রান্নাপ্রণালী রয়েছে। ঐতিহ্যবাহীই হোক বা সাধারণ রান্না, সব দেশেই নানান ধরনের মশলা ব্যবহার করা হয়। গ্রীসও তার ব্যতিক্রম নয়। গ্রীসের অধিকাংশই রান্নাই মশলা প্রধান।

গ্রীক জনগোষ্ঠী মশলাদার খাবার খুব পছন্দ করে। যারা মশলাদার খাবার খেতে পারেন না, তারা গ্রীসের খাবার চেখে দেখারও সাহস করতে পারবেন না। তবে বর্তমান গ্রীসের রান্নার পদ্ধতিতে অনেক পরিবর্তন এসেছে। প্রাচীন গ্রীসে রান্নায় মশলার ব্যবহার ছিলো অতিরিক্ত। চলুন গ্রীক কুজিনে ব্যবহৃত কিছু সাধারণ মশলার ব্যাপারে জেনে নিই।

১. অলস্পাইস (Allspice)

অলস্পাইস; Source: thespruceeats.com

গ্রীসে বাহারি নামে পরিচিত অলস্পাইস গ্রীক কুজিনে জনপ্রিয় ব্যবহৃত একটি মশলা। কারণ আটলান্টিক মহাসাগরের পশ্চিমে প্রচুর পরিমাণে অলস্পাইস জন্মে। বিভিন্ন ধরনের ডেজার্ট যেমন- বাকলাভা, কাতাইফি ইত্যাদিতে অলস্পাইস ব্যবহৃত হয়। এছাড়া, বিভিন্ন ধরনের মিষ্টি জাতীয় খাবারেও অলস্পাইস ব্যবহৃত হয়। এটি পশ্চিম ভারতীয় ফল হলেও গ্রীসে মশলা হিসেবে বিপুল জনপ্রিয়।

২. এলাচ (Cardamom)

গ্রীসে এলাচ কার্থামো নামেই অধিক পরিচিত। বিভিন্ন ধরনের সস তৈরিতে এবং সবজি রান্নায় এলাচ বিপুল পরিমাণে ব্যবহৃত হয়। মধ্যপ্র্যাচে বেশিরভাগই রান্নাতেই আস্ত এলাচই ব্যবহার করা হয়। তবে, মিষ্টি বা ডেজার্ট তৈরিতে শুধু এলাচের বিচি ব্যবহার করা হয়। কিছু রান্নাতে এলাচ বেটে পেস্ট হিসেবেও ব্যবহার করা হয়।

৩. লবঙ্গ (Cloves)

লবঙ্গ; Source: thespruceeats

সাধারণত গ্রীসে কেক, প্যাস্ট্রি, মিষ্টি এবং ডেজার্ট জাতীয় খাবার তৈরিতে অধিক পরিমাণে লবঙ্গ ব্যবহার করা হয়। গ্রীসের ঐতিহ্যবাহী ক্রিসমাস কুকিজ তৈরিতে লবঙ্গ অতি প্রয়োজনীয় একটি উপাদান। লবঙ্গ গ্রীসে ঘাগরিহ্ফালো নামে পরিচিত। শূকরের মাংসের রোস্ট তৈরিতেও লবঙ্গ ব্যবহার করা হয়। এছাড়া, বিভিন্ন ধরনের স্যুপ, মাংস, মাছ, সবজি ইত্যাদি রান্না করতে আস্ত লবঙ্গ ব্যবহার করা হয়।

৪. ধনিয়া (Coriander)

ধনিয়া গ্রীসে কহ্লিএন্থ্রো নামে পরিচিত। মৌরির মতোই এটিও পার্সলি পরিবারের সদস্য। ভূমধ্যসাগরীয় এবং মধ্যপ্রাচ্যে শুধু রান্নাতেই নয়, চিকিৎসাশাস্ত্রেও ধনিয়া ব্যবহার করা হয়। গ্রীসের কিছু ঐতিহ্যবাহী রান্নায় ধনিয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ হিসেবে বিবেচিত হয়। মশলাটির স্বাদ বেশ কড়া। রান্নায় ব্যবহার করার ফলে ধনিয়ার অন্যধরনের স্বাদ রান্নায় যুক্ত হয়। গ্রীসে মাছ এবং মাংস রান্নায় ধনিয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি মশলা।

৫. মেহলাব (Mahlab)

মেহলাব; Source: amazingfoodmadeeasy.com

মেহলাব নামের মশলাটি বন্য চেরির বীজ থেকে তৈরি করা হয়। মশলা হলেও ফলজাতীয় স্বাদ এর বিশেষত্ব। মাহলাব গ্রীসে মেহলেপি নামে পরিচিত। তাসরেক নামের ঐতিহ্যবাহী মিষ্টি তৈরি করতে মেহলাব ব্যবহার করা হয়। বিভিন্ন ধরনের কুকি, পেস্ট্রি ইত্যাদি ডেজার্ট তৈরিতেও মেহলাব ব্যবহার করা হয়। এই মশলাটি বেশ সুঘ্রাণ বিশিষ্ট। খাবার তৈরিতে ব্যবহারের ফলে খাবারের ঘ্রাণ হয় চমৎকার।

৬. ম্যাস্টেক (Mastic)

ম্যাস্টেক নামক মশলাটি গ্রীসে মেস্তেখাহ্ নামে পরিচিত। এটি ভূমধ্যসাগরীয় এক ধরনের গাছের আঠা। ম্যাস্টেক গ্রীসে মদ তৈরিতে ব্যবহার করা হয়। এই মদ গ্রীসের বাইরে অন্যকোনো দেশে পাওয়া দুষ্কর। গ্রীসে ব্যতিক্রমী স্বাদের এই মদটি তৈরি করা হয়, যা বিশ্বের অনেক দেশেই বেশ জনপ্রিয়। মদ তৈরি ছাড়াও এটি রুটি, ভাত, পুডিং, পায়েস, আইসক্রিম ইত্যাদি তৈরিতে ব্যবহার করা হয়।

৭. জায়ফল (Nutmeg)

জায়ফল; Source: fooddal.com

জায়ফলের গ্রীক নামটি বেশ বিচিত্র। গ্রীসে এটি মোসহোতারেতো নামে পরিচিত। গ্রীসের প্রাচীন এবং ঐতিহাসিক খাবার মোসাক্কা তৈরির অন্যতম প্রধান উপাদান হলো জায়ফল। এটি বেশ দামি একটি খাবার। এছাড়া, গরুর মাংস এবং আচার দিয়ে তৈরি করা বিশেষ এক ধরনের পাস্তা তৈরি করতেও জায়ফল ব্যবহার করা হয়।

বিশেষ ধরনের খাবার বাদেও প্রায় সব ধরনের খাবারেই গ্রীসে জায়ফল ব্যবহার করা হয়। ডেজার্ট, সস বা মদ খাবারটি যাই হোক, তৈরি করতে জায়ফল প্রয়োজন। এমনকি গ্রীকের কিছু ভাত রান্না করতেও জায়ফল ব্যবহার করা হয়।

৮. জাফরান (Saffron)

গ্রীসের চিকিৎসাবিদগণ মধ্যযুগেই জায়ফলের চিকিৎসাশাস্ত্রে বিপুল অবদান রয়েছে, তা আবিষ্কার করেছিলেন। গ্রীসে জাফরানের গাছ জাফরা বা সাফরানি নামে পরিচিত। ভাত বা পোলাও জাতীয় খাবারগুলো তৈরিতে জাফরান ব্যবহার করা হয়।

জাফরান খুব দামি একটি মশলা। তবুও গ্রীসে বিরিয়ানি রান্নায় বিপুল পরিমাণে জাফরান ব্যবহার করা হয়। গ্রীসের দরিদ্র জনগোষ্ঠীও খাবারের আওয়াত খরচ করতে বেশ উদার। জাফরান দামি মশলা হলেও এর ব্যবহারের কমতি নেই।

৯. সুমাক (Sumac)

সুমাক; Source: thekitchen.com

সুমাক বিশেষ এক ধরনের জুস। কিন্তু, গ্রীসে এটি মশলা হিসেবে ব্যবহার করা হয়। এটি গ্রীসে সুমাকি নামে পরিচিত। মাংস দিয়ে বিভিন্ন খাবার তৈরিতে সুমাক ব্যবহার করা হয়। তবে মাংস রাব, মেরিনেট ইত্যাদি করতে সুমাক অধিক ব্যবহার করা হয়।

এই জুসটি সামান্য বিষাক্ত। সেজন্য রান্নায় খুব সর্তকতার সাথে ব্যবহার করতে হয়। গ্রীক রান্নায় সুমাক ব্যবহার করার বিশেষ কিছু পদ্ধতিও রয়েছে। অতিরিক্ত ব্যবহার করলে সাধারণ কিছু অসুস্থতা থেকে মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে।

১০. গ্রীক অলিভ

গ্রীসে অলিভ বা জলপাই জাতীয় বেশকিছু ফল মশলা হিসেবে ব্যবহার করা হয়। কালামাথা রেড অলিভ, নাফলিয়ন গ্রিন অলিভ, হালকিতিকি গ্রিন অলিভ, পাম অলিভ, কালামাথা ব্ল্যাক অলিভ ইত্যাদি গ্রীসে মাছ এবং মাংস রান্নায় মশলা হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

আদতে রান্নায় হালকা টক জাতীয় স্বাদ যুক্ত করতে অলিভ ব্যবহার করা হয়। কাঁচা এবং শুকনো দুই ধরনের অলিভই মশলা হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তবে মশলা হিসেবে কাঁচা অলিভের চেয়ে শুকনো অলিভের চাহিদাই বেশি।

Feature Image: livesharetravel.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here