ব্লেন্ডারের সাহায্য ছাড়া গরুর মাংসের কোফতা বানানোর রেসিপি

0
656

কুরবানির ঈদে কম বেশি সকল মুসলিমের ঘরেই থাকে গরুর মাংস। আল্লাহর নির্ধারিত আইন অনুযায়ী ধনী গরীব সবার ঘরেই কুরবানির ঈদে মাংস থাকবে। সবসময় তো একই ধাঁচে মাংস রান্না করলে খেতে ভালো লাগে না, সেজন্য রান্নায় থাকা চাই ভিন্নতা। তারই ধারাবাহিকতায় কুরবানীর ঈদে আমার হোস্টেলের মেয়েদের জন্য তৈরি করতে চাইলাম গরুর মাংসের কোফতা। এর আগে আর কখনো কোফতা বানাইনি, তাই এই অভিজ্ঞতা আমার জন্য নতুন।

মজাদার মাংসের ভাজা কোফতা; image source : mukta kitchen

কোফতার জন্য প্রয়োজনীয় উপকরন

গরুর মাংসের –  ১ কেজি

পেঁয়াজ কুচি – ৪টি মাঝারি আকারের 

হলুদ গুঁড়া – ২ চা চামচ

কাঁচা মরিচ কুচি- ৮ টেবিল চামচ

জিরা গুঁড়া – ২ চা চামচ

গরম মসলা গুঁড়া – ২ চা চামচ

আদা বাটা – ২ চা চামচ

রসুন বাটা – ২ চা চামচ

ধনে পাতাকুচি – ৪ টেবিল চামচ

ব্রেডক্রাম্ব – ২ কাপ (অত্যাবশ্যক নয়)

ডিমের কুসুম – ৪টি (অত্যাবশ্যক নয়)

তেল – ৪ কাপ

লবণ – ১ চা চামচ বা স্বাদমতো

খামির থেকে বানানো কোফতার আকৃতি; image source : মাদিহা মৌ

কোফতা বানানোর পদ্ধতি

কোফতা বানানোর জন্য প্রথমেই গরুর মাংস ব্লেন্ডারে কিমা করে নিতে হয়। মাংস ধুয়ে নিয়ে কিমা বানাতে গিয়েই আমার ব্লেন্ডার গেল নষ্ট হয়ে। এই অবস্থায় কী করি? কোফতা বানানো বন্ধ করে দেব? তাই কি হয়? মেয়েদের বলে রেখেছি, তাদের কোফতা খাওয়াবো!

জানতে পারলাম, ব্লেন্ডারে কিমা না করেও কোফতা বানানো যায়। পদ্ধতিটি একটু কঠিন, তবে অসম্ভব নয়। সেক্ষেত্রে প্রথমে মাংসগুলো ছোটো ছোটো টুকরো করে নিতে হবে। তারপর টুকরো করা মাংস প্রেশার কুকারে পরিমাণমতো লবণসহ সেদ্ধ করে নিতে হবে। তারপর সেদ্ধ মাংসের টুকরোগুলো পাটায় পিষে নিতে হবে। এভাবে কাজ করায় পরিশ্রম বেশি হলেও ব্লেন্ডারের বিকল্প হিসেবে এই পদ্ধতিতেই কোফতা বানানো যায়।

ননস্টিকি কড়াইয়ে কোফতা ভাজা হচ্ছে; image source : মাদিহা মৌ

এবার একটি কড়াইয়ে ৮ টেবিল চামচ তেল গরম করে পেঁয়াজ কুচিগুলো দিয়ে দিন। পেঁয়াজ নরম না হওয়া পর্যন্ত ভাজুন। তারপর কোফতার সমস্ত গুঁড়া মসলা এবং বাটা মসলা দিয়ে কিছুক্ষন কষান। তারপর ১ টেবিল চামচমত পানি দিয়ে নেড়ে দিন এবং মসলা থেকে তেল আলাদা হয়ে আসা পর্যন্ত কষান।

এবার সেদ্ধ গরুর মাংস বাটা যোগ করে মাঝারি তাপে  কয়েক মিনিটের জন্য নাড়ুন। এতে কুচি করে রাখা কাঁচা মরিচ দিয়ে দিন। যদি ব্লেন্ডারে মাংসের কিমা করা সম্ভব হয়, তাহলে সেক্ষেত্রে মাংসের কিমা এরপর ১/২ কাপ পানি দিয়ে রান্না করে নিতে হবে।

মাংস সেদ্ধ হয়ে নরম রুটি বানানোর খামিরের মতো কিছুটা হয়ে এলে চুলা থেকে নামিয়ে একটি বাটিতে নিন। এতে ব্রেড ক্রাম্ব এবং ডিমের কুসুম দিয়ে ভালোভাবে মেশান। খামিরটিকে আরোও আঠালো করতে পরিমাণমতো মটরডালের ঘুগনি যোগ করতে পারেন। খামির তৈরি হয়ে এলে হাত দিয়ে গোলাকার কোফতা তৈরি করুন। আপনি চাইলে চ্যাপ্টা কিংবা লম্বাটে আকারের কোফতাও বানাতে পারেন।

সস দিয়ে খেতে খুবই সুস্বাদু এই কোফতা; image source : YouTube

কড়াইয়ে মাঝারি তাপে তেল গরম করে তাতে খামির থেকে তৈরিকৃত কোফতা ভাজার জন্য দিয়ে দিন। সবদিকে সুন্দর বাদামী রং করে ভেজে নিন। ভাজা হয়ে গেলে কোফতা তেল থেকে তুলে নিন। এবারে অতিরিক্ত তেল শোষণের জন্য একটি কিচেন টাওয়াল বা টিস্যুর ওপর রাখুন। বিভিন্ন স্বাদের টমেটো সস দিয়ে পরিবেশন করুন। চাইলে কোফতা পোলাও বা বিরিয়ানীর সাথেও খাওয়া যায়।

এর সাথে খাওয়ার জন্য ঘরেই বানিয়ে নিতে পারেন নিজের পছন্দমতো সস। টমেটো সস বানানো যায় খুব সহজেই। তার জন্য টমেটো, চিনি, লবন, মরিচ, ভিনেগার পরিমাণমতো নিয়ে নিন। টমেটোগুলো ভালো ভাবে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিয়ে চার টুকরো করে কেটে নিন।

টমেটো সেদ্ধ করে পেঁয়াজ কুঁচি, রসুন টম্যাটোর সাথে দিয়ে ঠাণ্ডা করে নিন। এরপর ছাঁকনি দিয়ে টমেটো পেস্ট ছেঁকে চুলায় কড়াইয়ে নিয়ে বাকি সব উপকরণ দিয়ে জ্বাল দিন। এসময় অনবরত নাড়তে হবে যেন কড়াইয়ের নিচে না লেগে যায় । টমেটো পেস্ট ঘন হয়ে গেলেই আপনার সস তৈরি।

ঘরে বানানো টমেটো সস; image source : মাদিহা মৌ

এছাড়াও আপনার খাওয়ার স্বাদে ভিন্নতা আনতে পারে টার্টার সস। আধা কাপ ঘরে বানানো মেয়োনেজ, মিহি পেঁয়াজ কুচি, ধনেপাতা কুচি, কাঁচামরিচ কুচি, ১ টেবিল চামচ সর্ষে গুঁড়া, লেবুর রস, ১ চিমটি কালো গোলমরিচ গুঁড়া, কচি শশা কুচানো, সবুজ জলপাই কুচানো- এই সবগুলো উপকরণগুলো একসাথে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে টার্টার সস।

স্বাদে একটু ভিন্নতা আনতে চাইলে, এর সাথে দুই টেবিল চামচ ছোট করে কাটা ভিনিগার আর চিনিতে ভেজানো শসার টুকরা কিংবা ভিনিগারে আর চিনিতে ভেজানো ছোট করে কাটা পেঁয়াজ অথবা কাঁচা আম দেওয়া যেতে পারে। সমস্ত উপকরণ ভালোমতো মিশিয়ে নিলেই আলাদা স্বাদ চলে আসবে।

যে সস দিয়েই খান না কেন, এই কোফতা আপনার খাবারে আনবে বৈচিত্র্যময়তা। মেহমান এলেও আপ্যায়ন করতে পারেন সুস্বাদু কোফতা ও ঘরে বানানো সস দিয়ে।

Feature image source : YouTube

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here