যেসব ভুলের কারণে আপনার ওজন কমছে না

0
633

ওজন বেড়ে গেছে? আপনি ডায়েট করছেন, সঠিক পরিমাপে খাবার খাওয়ার চেষ্টা করছেন অথচ ওজন কমছে না? তাহলে এইবার শান্ত হয়ে বসুন। ঠান্ডা মাথায় ভাবুন। ওজন কেন কমছে না তার কারণগুলো জানার চেষ্টা করুন। এমন অনেকে আছে যারা ওজন কমানোর চেষ্টা করে অথচ ডায়েট পরিকল্পনায় অসংখ্য ভুল করে থাকে। হতে পারে আপনার ডায়েট পরিকল্পনায় অনেক ভুল রয়েছে। তাই ডায়েট করেও আপনার স্বাস্থ্য কমছে না। জেনে নিন সেসব ভুল সম্পর্কে।

পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালরি বহুল খাবার না খাওয়া

ওজন কমাতে গিয়ে অনেকে খাওয়া দাওয়া ছেড়ে দেন। আবার অনেকে এত অল্প খান যে, পর্যাপ্ত খাবারের পুষ্টি পান না। ওজন কমাতে গেলে শর্করা জাতীয় খাদ্য কম খেতে হবে তা ঠিক। তবে এত কম খাওয়া যাবে না যার ফলে শরীরে পুষ্টির চাহিদা দ্বিগুণ হয়ে যাবে।

Photo: rd.com

ডায়েট চার্টে উপযুক্ত ক্যালরি বহুল খাদ্য রাখতে হবে। আপনি যদি ওজন কমাতে গিয়ে ভিটামিন, প্রোটিন ও পুষ্টিসমৃদ্ধ খাবার না খান তাহলে ওজন তো কমবে না বরং আপনি অসুস্থ হয়ে যাবেন। অনেক বেশি পরিমাণে খাবার খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য বিপদজনক। আবার একেবারে কম খাওয়াও বিপদজনক। তাই খাবার খেতে হবে পর্যাপ্ত পরিমাণে।

কোনো এক বেলার খাবার এড়িয়ে যাওয়া

ওজন কমাতে হলেও প্রতিবেলা খাবার খেতে হবে। অনেকে মনে করেন, ওজন কমাতে হলে না খেয়ে থাকতে হবে। এটি সম্পূর্ণ ভুল ও ভ্রান্ত ধারণা। আবার কেউ কেউ সকালে খাবার খায় না, রাতে খাবার খায় না। শুধুমাত্র দুপুরে খায়। এটি শরীরে খুব মারাত্মক প্রভাব ফেলে। এর ফলে কোনো উপকার তো হয় না বরং অপকার হয়। ওজন কমাতে হলে প্রতিবেলা নির্দিষ্ট পরিমাণে খাবার খেতে হবে।

Photo: rd.com

নয়তো সারাদিনে একবেলা খাবার খাওয়ার ফলে আপনার শারীরিক বিভিন্ন অসুবিধার সৃষ্টি হবে। ওজন কমানোর জন্য পরিশ্রম করতে হবে, কাজ করতে হবে। কোনো একবেলা বা দুইবেলার খাবার এড়িয়ে গেলে আপনার শরীরে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। বিপাকীয় কার্যক্রমের ব্যাঘাত ঘটবে। ওজন কমার বদলে ওজন আরো বেড়ে যাবে।

খাওয়ার সময় কোনো কিছু মাথায় না থাকা

আপনি যদি ওজন কমাতে চান তাহলে কম খেতে হবে। খাবার খেতে বসে যদি ডায়েটের কথা আপনার মাথায় না থাকে তাহলে আপনার ওজন কখনো কমবে না। প্রবাদ আছে, ‘আপনি তাই যা আপনি খান’। প্রায় প্রতিদিন যদি বন্ধু- বান্ধব ও আত্মীয়দের সাথে বাইরে খেতে যান তাহলে কিভাবে ওজন কমাবেন বলুন তো? ওজন কমাতে হলে ফাস্ট ফুড, জাঙ্কফুড ও বাইরের খাবার থেকে বিরত থাকতে হবে। অ্যালকোহল ও কোমল পানীয় থেকে বিরত থাকতে হবে।

Photo: rd.com

কেউ কেউ টেলিভিশন দেখতে বসে খাবার নিয়ে। যতক্ষণ সিরিয়াল চলতে থাকে ততক্ষণ খেতে থাকে। এভাবে প্রয়োজনের অতিরিক্ত খাবার খাওয়া হয়ে যায়। এই ধরনের ভুল থেকে বিরত থাকতে হবে। না খেয়ে যেমন ওজন কমানো যায় না তেমনি অতিরিক্ত খেয়েও ওজন কমানো যায় না।

সঠিক পরিকল্পনা অনুযায়ী না চলা

ওজন না কমার আরেকটি অন্যতম কারণ হলো আপনি সঠিক পরিকল্পনা অনুযায়ী চলছেন না। হয়তো আপনি এক সপ্তাহ পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করেছেন, খাবার গ্রহণ করেছেন। তারপর থেকে ব্যস্ততা বা অন্য কোনো কারণে পরিকল্পনা অনুযায়ী খাবার গ্রহণ না করলে ওজন কমবে না। সঠিক পথে না এগোলে কিভাবে সফল হবেন? ব্যস্ততার কারণে আপনি হয়ত রান্না করে না খেয়ে রেস্টুরেন্ট থেকে খাবার এনে খেলেন এবং অধিক পরিমাণে খাবার খেলেন তাহলে কি ওজন কমবে? স্ন্যাকস হিসেবে হলেও ফাস্টফুড বর্জন করা উচিত।

Photo: rd.com

বিকেলের নাস্তায় স্বাস্থ্যকর খাবার যেমন বাদাম, পপকর্ন, দই, ফল, আপেল ইত্যাদি খেতে পারেন। সকালের নাস্তায় স্বাস্থ্যকর খাবার খান। প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার খাওয়া উচিত। ভিটামিন ও প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার আপনাকে শক্তি যোগাবে। সর্বদা বাসায় শিমের বিচি, ডিম, মটরশুটি, আভোকাডো ইত্যাদি রাখা উচিত।

পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান না করা

পানির অপর নাম জীবন। পানি শরীরের ভেতর রক্ত চলাচলে, অক্সিজেন সরবরাহে সহায়তা করে। পানি শরীরের সকল বিষাক্ত পদার্থ বের করে দেয় এবং শরীরকে রাখে কর্মক্ষম ও সুস্থ। শরীরে ৫০-৬০ ভাগ পানি আছে। পর্যাপ্ত পানি খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য খুব ভালো। পানি খেলে অন্যান্য খাবার কম খেতে হয়। এছাড়া অভ্যন্তরীণ কার্যক্রম সচল রাখে পানি। ওজন কমাতে পানির ভূমিকা অগ্রগণ্য। কারণ পানি বিপাকীয় কাজ ও অন্যান্য কাজের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

Photo: rd.com

সম্প্রতি এক গবেষণায় বলা হয়েছে যারা প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি খায় তারা ৬৮-২০৫ ক্যালরি পোড়াতে সক্ষম হয়। আপনি যদি শুধু পানি বেশি খেতে না পারেন তাহলে তরমুজ, লেবুর শরবত, শসা, মূলা, টমেটো, আঙুর, স্ট্রবেরি ইত্যাদি খান।

নিয়মিত ব্যায়াম না করা

ওজন কমাতে হলে শুধু খাদ্য নিয়ন্ত্রণ করলেই হবে না। প্রয়োজনীয় ব্যায়ামও করতে হবে। কারণ ব্যায়াম করলে শরীর থেকে ফ্যাট নির্গত হয় এবং ক্যালরি ক্ষয়প্রাপ্ত হয়। ব্যায়াম করলে শরীর কর্মক্ষম ও সচল থাকে।

Photo: rd.com

আপনি যদি ক্যালরিবহুল খাবার খেতে থাকেন কিন্তু ব্যায়াম না করেন তাহলে আপনার অতিরিক্ত ক্যালরি ক্ষয় হবে না। এর ফলে আপনার ওজন বৃদ্ধি পাবে এবং শরীর মেদবহুল হয়ে যাবে। গবেষকরা মনে করেন ব্যায়াম শুধু ওজন কমানোর জন্যই নয়, পুরো শরীরের জন্য উপকারী।

ওজন কমাতে চাইলে বিভিন্ন দিকে খেয়াল রাখা প্রয়োজন। বাজার করার সময় বুঝে শুনে বিচক্ষণতার সাথে বাজার করা উচিত। পুষ্টিকর খাবার কেনা উচিত। শুধু ক্যালরিবহুল খাবার না কিনে প্রোটিন ও ভিটামিনসমৃদ্ধ খাবার ক্রয় করা উচিত। আর নিয়ম মেনে পরিকল্পনা অনুযায়ী খাবার গ্রহণ করা উচিত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here